সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার পরিচিতি

ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মাহফিলে নানা ধরণের বিদআত ও পাপাচার হয়, তাই তা করা যাবে না এই কথা কতটুকু সত্য?

অনেকে বলে থাকে পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলােইহি ওয়া সাল্লাম উনার মাহফিলে অনেক বিদয়াত পাপাচার হই তাই ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু পালন করাই নাকি বিদয়াত মূলত তাদের এই বক্তব্য হচ্ছে, মাথাই ব্যাথা হলে পুরো মাথা কেটে ফেলার মত। ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মাহফিলের নামে অনেকে হারাম কাজ করতে পারে, কিন্তু সেটার দায় … Continue reading "ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মাহফিলে নানা ধরণের বিদআত ও পাপাচার হয়, তাই তা করা যাবে না এই কথা কতটুকু সত্য?"

হে মুসলমান সম্প্রদায়, কাফের মুশরিকদের সকল প্রকার নির্যাতন ও আজাব গজব থেকে বাছতে চাইলে এবং নিরাপত্তা ও স্বস্তি, জীবিকার মানোন্নয়ন, শিশু ও সম্পদ বৃদ্ধি এবং শহরের শান্তি অর্জন করতে হলে সার্বক্ষণিকভাবে ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন করতে হবে।

কিছু লোক এমন আছে যারা বলে, “সারা বিশ্বে মুসলমানরা নির্যাতিত হচ্ছে, আর আপনারা ঈদে মীলাদুন নবী উপলক্ষে খুশি করছেন।” যারা এ ধরনের বক্তব্য দেয় তারা নিতান্তই জাহেল বা মূর্খ। একটি কথা কারোই অস্বীকার করার কোন উপায় নেই যে, মুসলমানরা ইসলাম পালন ছেড়ে দেওয়ায় দরূণ এই করুন অবস্থা। মুসলমানরা কুরআন শরীফ হাদীস শরীফ থেকে দূরে সরে … Continue reading "হে মুসলমান সম্প্রদায়, কাফের মুশরিকদের সকল প্রকার নির্যাতন ও আজাব গজব থেকে বাছতে চাইলে এবং নিরাপত্তা ও স্বস্তি, জীবিকার মানোন্নয়ন, শিশু ও সম্পদ বৃদ্ধি এবং শহরের শান্তি অর্জন করতে হলে সার্বক্ষণিকভাবে ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন করতে হবে।"

সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ মাহফিল তথা ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মাহফিল এর মাধ্যমেই নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রকৃত শান মুবারক উনার বহি:প্রকাশ ঘটে

আলেম নামধারী অনকে জহেল প্রকৃতির লোকেরা বলে থাকে  ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ (ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) এ নাকি নবীজি সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি সম্মানে বাড়াবাড়ি হয়ে যায়। আল্লাহকে ডাকার পরিবর্তে নাকি নবীজী( ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) উনাকে ডাকা এবং উনার সাহায্য চাওয়া পর্যন্ত রূপ নিতে পারে। এবং এই বিষয়ে তারা একটা হাদীস শরীফে উল্লেখ করে … Continue reading "সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ মাহফিল তথা ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মাহফিল এর মাধ্যমেই নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রকৃত শান মুবারক উনার বহি:প্রকাশ ঘটে"

ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সর্বশ্রেষ্ঠ ঈদ, যে ঈদের জন্য সম্মানিত শরীয়ত উনার মধ্যে খুৎবা নামাজ স্বর্থযুক্ত নয়।

অনেক জাহেল প্রকৃতির লোকেরা বলে থাকে ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলিাইহি ওয়া সাল্লাম ঈদে হলে এই ঈদে নামাজ কত? এই মূর্খদের নিকট আমাদের প্রশ্ন ঈদ হলে তার সাথে নামাজ থাকতে হবে এমন শর্ত শরীয়তে কোথায় আছে? অথচ পবিত্র সহীহ হাদীস শরীফ উনার থেকে প্রমানিত যে জুমুয়ার দিন ঈদের দিন। আমি প্রশ্ন করবো এই ঈদে নামাজ কত … Continue reading "ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সর্বশ্রেষ্ঠ ঈদ, যে ঈদের জন্য সম্মানিত শরীয়ত উনার মধ্যে খুৎবা নামাজ স্বর্থযুক্ত নয়।"

জন্মদিন পালন করা সুন্নাত

অনেক গাধা দাবি করে, ইসলামে নাকি জন্মদিন পালন করা হারাম। তাহলে জুমুয়ার দিন পালন করা কি? অথচ এ গাধাগুলো ঠিক ঠিক জুমার দিনকে পালন করে থাকে। অথচ এ বোকাগুলো জানে না, জুমার দিনটি হচ্ছে প্রথম নবী হযরত আদম আলাইহি সালামে উনার সম্মানিত সৃষ্টি দিবস। হাদীস শরীফেএ ইরশাদ মুবারক হয়েছে-“সর্বাপেক্ষা উত্তম ও বরকতময় দিন হচ্ছে জুমার … Continue reading "জন্মদিন পালন করা সুন্নাত"

১২ রবিউল আউয়াল শরীফ ই নূরে মুজাসসাম,হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ দিবস।

অনেকে পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ তথা ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিরুধীতা করতে গিয়ে বলে থাকে যে, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু উনার বিলাদত(জম্ম) শরীফ উনার তারিখ ১২ রবিউল আউয়াল নাকি ভুল। তাদের উদ্দেশ্যে আমরা বলতে চাই যে, ১২ তারিখ ই হচ্ছে সহিহ এবং গ্রহনযোগ্য মত এবং অন্যান্য মতগুলোই মূলত বাতিল মত । … Continue reading "১২ রবিউল আউয়াল শরীফ ই নূরে মুজাসসাম,হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ দিবস।"

ঈমানদারদের জন্য সর্বশ্রেষ্ঠ তম খুশির দিন হচ্ছে ১২ ই রবিউল আউয়াল শরীফ।

অনেক আলেম নামধারী জাহিল প্রকৃতির লোকেরা বলে থাকে ১২ রবিউল আউয়াল শরীফ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিছাল( ইন্তেকাল) শরীফ এর দিন, তাই এই দিন খুশি প্রকাশ করা জাবে না বরং তারা বলে থাকে এই দিনে নাকি দু:খ প্রকাশ করতে হবে!! নাউজুবিল্লাহ। মূলত এই ধরনের আলেম নামধারী জাহেল প্রকৃতির যে সকল লোক নূরে … Continue reading "ঈমানদারদের জন্য সর্বশ্রেষ্ঠ তম খুশির দিন হচ্ছে ১২ ই রবিউল আউয়াল শরীফ।"

সম্মানিত দ্বীন ইসলামে দিবস পালন করা মহান আল্লাহ পাক উনার আদেশ মুবারক, সে দিবসসূহের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ দিবস হচ্ছে ১২ ই রবিউল আউয়াল শরীফ দিবস।

কিছু বাতিল ও গোমরাহ ফেরকার লোকেরা বলে থাকে সম্মানিত দ্বীন ইসলামে নাকি দিবস পালন করা হারাম! বলার বিষয় হল যদি সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে দিবস পালনের বিধান হারাম-ই হয়ে থাকে তাহলে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ, হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর শরীফ বা পবিত্র শবে ক্বদর শরীফ তালাশ করতে কেন বললেন? … Continue reading "সম্মানিত দ্বীন ইসলামে দিবস পালন করা মহান আল্লাহ পাক উনার আদেশ মুবারক, সে দিবসসূহের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ দিবস হচ্ছে ১২ ই রবিউল আউয়াল শরীফ দিবস।"

যারা বিদয়াতী ও বাতিল শুধুমাত্র তারাই পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ তথা ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিরুধীতা করে থাকে ।

বর্তমানে যারা পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ তথা ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ‍বিরুধীতা করে থাকে তারা মূলত বিদয়াতী। ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ (ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) এর প্রথম বিরোধীতা শুরু হয় সউদ পরিবার যখন ১৯৩২ সালে জাজিরাতুল আরবের ক্ষমতা দখল করে তখন থেকে। উল্লেখ্য ব্রিটিশ গোয়েন্দা টিই লরেন্সের সহায়তায় মরু ডাকাত সউদ পরিবার (সউদ … Continue reading "যারা বিদয়াতী ও বাতিল শুধুমাত্র তারাই পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ তথা ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিরুধীতা করে থাকে ।"

মুসলমান ও সন্ত্রাসীর মধ্যে পার্থক্য হচ্ছে পবিত্র ‘সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ’ তথা হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াছাল্লাম উনার সুমহান বেলাদত শরীফ উপলক্ষে উনার সুমহান সম্মানার্থে উনার শান মুবারক এ খুশি মুবারক প্রকাশ করা।

বর্তমানে কাফির-মুশরিকদের এজেন্ট মুসলমান নামধারী সন্ত্রাসীদের ব্যাপারে  গোয়েন্দাবাহিনী-প্রতিরক্ষা বাহিনী খুব চিন্তার মধ্যে আছে। কিন্তু খুব সহজে হিসেব করলে একজন মুসলমান ও সন্ত্রাসীর মধ্যে তফাৎ হচ্ছে পবিত্র সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ তথা ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন। সুবহানাল্লাহ। বর্তমানে সারা বিশ্বে যারা সন্ত্রাসীপনা করে সম্রাজ্যবাদীদের আক্রমণের মওকা তৈরী করছে তারা প্রায় সবাই ওহাবী-সালাফি আকিদ্বাভূক্ত … Continue reading "মুসলমান ও সন্ত্রাসীর মধ্যে পার্থক্য হচ্ছে পবিত্র ‘সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ’ তথা হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াছাল্লাম উনার সুমহান বেলাদত শরীফ উপলক্ষে উনার সুমহান সম্মানার্থে উনার শান মুবারক এ খুশি মুবারক প্রকাশ করা।"